দেশবিনোদনরাজনীতি

বার বার বিতর্কিত মন্তব্যের জের, টুইটারের পর এবার কাজও হারালেন বলিউড কুইন কঙ্গনা

বাংলার নির্বাচন নিয়ে অভিনেত্রী কঙ্গনা নানারকম মন্তব্য করাতে। সমস্ত টুইটার নেটওয়ার্কে ছড়িয়ে পরে। অভিনেত্রী কঙ্গনা কট্টর বিজেপির সমর্থক কঙ্গনার বিরুদ্ধে টুইটার বিধি লঙ্ঘন করার অভিযোগ ওঠে। এইজন্য টাইটার কর্তৃপক্ষ থেকে অভিনেত্রীর অ্যাকাউন্ট নিষ্ক্রিয় করে দেওয়া হয়েছে। কর্তৃপক্ষ জানায় তারা তাদের বিশেষ ন। যম মেনে চলেন টুইটার মুখপাত্র বলেন, কোনো পোস্ট থেকে বড় ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা থাকলে তার বিরুদ্ধে তাঁরা পদক্ষেপ নেবেন। আর অভিনেত্রী কঙ্গনা টুইটারের নীতি লঙ্ঘন করেছেন তাই তারা অ্যাকাউন্ট নিষ্ক্রিয় করে দিয়েছে।

এরপর অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত চলচ্চিত্র শিল্পের মাধ্যমে নিজের ব্যাক্তিগত মতামত প্রকাশ করেন। একদিকে যখন অভিনেত্রী সায়নী খুব খুশি হয়ে বলেছেন, বাংলা থেকে বিজেপি বিতাড়িত এবং টুইটার থেকে কঙ্গনা বিতাড়িত, ময়লা সাফ হয়ে যাচ্ছে। অপরদিকে অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত কাঁদতে কাঁদতে ইনস্টাগ্রামে একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন, সেখানে অভিনেত্রী বলেছেন বাংলায় হত্যালীলা ও গণধর্ষণ চালানো হচ্ছে যা দেখে তিনি আর থাকতে পারছেন না। তার পাশাপাশি অভিনেত্রী কঙ্গনা তার সমস্ত অনুরাগীদের প্রশ্ন করেছেন, এবার কি তাহলে দেশদ্রোহীরা দেশ চালাবে? মুহূর্তে ভাইরাল অভিনেত্রীর এই বক্তব্য।

সোশ্যাল মিডিয়ায় বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য এবার কঙ্গনাকে ডোতে হলো আরও খেসারত। হারিয়ে ফেললেন তার কাজ। জানাগেছে মঙ্গলবার দুই বিখ্যাত ডিজাইনার আনন্দ ভূষণ ও রিমঝিম ডাদু সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছেন তারা কঙ্গনার সাথে আগামী বেশ কিছু কাজ বাতিল করে দিচ্ছেন শুধু তাই নয় এর আগে তারা কঙ্গনার সাথে মিলে যেসব কাজ করেছেন তারা তা খুব শিগ্রই সরিয়ে নেবেন বলে জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার দুই প্রখ্যাত ফ্যাশন ডিজাইনার আনন্দ ভূষণ ও রিমঝিম ডাদু সামাজিক পাতায় কঙ্গনার সঙ্গে তাঁদের আগামী বেশ কিছু কাজ বাতিল বলে ঘোষণা করেন। শুধু তা-ই নয়, এর আগে যা যা কাজ করেছেন কঙ্গনার সঙ্গে, তাও নেটমাধ্যম থেকে সরিয়ে দেওয়ার কথা। এমনকি ভবিষতে তারা কঙ্গনার সাথে কোনোরকম কাজ করবেন না বলে জানিয়েছেন।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Kangana Ranaut (@kanganaranaut)

Back to top button