কলকাতানিউজ

ফের দুঃসংবাদ! সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় পরপরই ইহলোক ছেড়ে চলে গেলেন জনপ্রিয় বাঙালি

কিছুদিন আগেই গত রবিবার বাংলা তথা গোটা বিশ্ব হারালো কিংবদন্তি বাঙালি অভিনেতা সৌমিত্র চ্যাটার্জি কে। তার রেশ এখনো কাটেনি আর তারমধ্যেই আরও এক নক্ষত্র পতন ঘটলো বাংলার বুকে। বাংলা সাহিত্য জগতের অন্যতম পরিচিত ও জনপ্রিয় লেখক হলেন আলোকরঞ্জন দাশগুপ্ত। তিনি প্রয়াত হয়েছেন মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৭ বছর। তিনি দীর্ঘদিন ধরেই ভুগছিলেন বার্ধক্য জনিত রোগে।

১৯৩৩ সালে জন্ম গ্রহণ করেন বাংলার স্বনাম ধর্ম এই লেখক। তিনি ছোটবেলা থেকেই শান্তিনিকেতনের বিশ্বভারতীতে পড়াশুনা করেছেন। তারপর সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজে সাহিত্য নিয়েই করেন উচ্চশিক্ষা। তিনি বাংলার মতো মিষ্টি ভাষাকে খুবই ভালোবাসতেন। বাংলা ভাষাতেই লিখে গেছেন তার একাধিক গ্রন্থ। তিনি লিটল ম্যাগাজিনসমূহের সঙ্গে যুক্ত হয়ে মূল জার্মান লেখাগুলিকে বাংলা ভাষায় অনুবাদ করতে থাকেন।

সাহিত্যের ওপর পিএইচডি শেষ করার পরে, তিনি ক ১৯৫৭ সাল থেকে ১৯৭১ সাল অব্দি কলকাতার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে তুলনামূলক সাহিত্য বিভাগ ও বাংলা পড়িয়েছেন।

১৯৯২ সালে ‘মরমী কারাত’ কাব্যগ্রন্থের জন্য তাঁকে সাহিত্য অ্যাকা়ডেমি পুরস্কারের সম্মানিত করা হয়। জীবদ্দশায় প্রায় ২০টি কাব্যগ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে অলোকরঞ্জন দাশগুপ্তের। ১৯৮৫ সালে আনন্দ পুরস্কার ,১৯৮৫ সালে প্রবাসী ভারতীয় সম্মান, ১৯৮৭ সালে রবীন্দ্র পুরস্কার।

তিনি তার সাহিত্যে বিভিন্ন অবদানের মাধ্যমে ভারতবর্ষ তথা বাংলাকে তুলে ধরেছেন গোটা বিশ্বের কাছে। কিংবদন্তি এই লেখক নিজের লেখার মাধ্যমেই আমাদের মধ্যে বেঁচে থাকবেন। তার সৃষ্ট সাহিত্য রচনা দীর্ঘকাল অমর হয়ে থাকবে বাঙালির মনি কোঠায়।

Back to top button