বিনোদন

অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী প্রতিবন্দী যুবকের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন

মিমি চক্রবর্তী একদিকে বাংলার প্রথম সারির অভিনেত্রী আর অন্যদিকে যাদবপুরের সাংস। করোনা আবহের সময় বাংলায় লোকডাউন এ সাধারণ মানুষের পশে দাঁড়িয়েছেন মিমি চক্রবর্তী। এই করা লোকডাউনের সময়ও দুস্থ সাধারণ মানুষের পশে দাঁড়িয়েছেন তিনি। পাশাপাশি যাদবপুর সংসদীয় এলাকায় মানুষদের সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার কথা তিনি ভোলেননি। তাছাড়া বিধ্বংসী আম্ফান ঝড়ের সময়ও মানুষদের পশে দাঁড়িয়েছেন তিন।লকডাউনে যেমন নিজের কুকুরদেরকে নিজে হাতে যত্ন করেছেন ঠিক তেমনি পথ থাকা কুকুরদের কেও খাইয়েছেন নিজে হাতে। যেভাবে পারেন মানুষের পশে থাকার চেষ্টা করেছেন তিনি।

যেমন এই লকডাউনে ফেসবুকে সেই চা কাকুর কথা মনে আছে আপনাদের ?সোশ্যাল মিডিয়ায় যেখানে ‘ভাইরাল চা কাকু’কে নিয়ে সবাই মসকরায় মেতে উঠেছিলেন সেখানে অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী নিজের প্রতিনিধি পাঠিয়ে নিত্য সামগ্রী পাঠিয়েছিল। দুস্থদের পশে দাঁড়ানোর একাধিক উদাহরণ আছে মিমি ক্ষেত্রে। এবার এক প্রতিবিবন্দী তরুণকে সাহায্যের আশ্বাস দিলেন। সোমংসদীয় কাজ শুটিংয়ের পাশাপাশি তিনি বারংবার ছুটে আসেন অসহায় মানুষের পশে তাদের সাহায্য করতে , তা আবারো প্রমান করে দিলেন সংসদ-অভিনেত্রী।

সংসদ নায়িকার এমন কাজের জন্য অভিনেত্রীর অনুরাগীরা বেশ প্রশংসা করেন। ২৫ ডিসেম্বর আস্তে আর বেশি দেরি নেই। তার আগেই সান্তা ক্লস হয়ে পশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দিলেন অভিনেত্রী। এক প্রতিদ্বন্দ্বী তরুণকে সাহায্যের হাত বাড়ালেন অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। অভিনেত্রীর একটি নতুন গানের টিজার মুক্তি পেয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ার পেজ এ আর সেখানেই এই ঘটনা ঘটে।

যেখানে অনুরাগীরা এই টিজার দেখে প্রশংসা করছেন সেখানে নন্দগোপাল জানা নাম এক যুবক এসে আর্জি জানান। মিমির ওই পোস্টার কমেন্ট বাক্স এ লেখেন,”দিদি আমার প্রমাণ নেবেন। আমি একজন প্রতিবন্ধী। আমাকে সাহায্য করুন। আপনাদের কাছে আমি টাকা চাইছি না। তবে আমার পা আগুনে পুড়ে গিয়েছে। আমাকে একটু সাহায্য করুন দয়া করে।”সেই আবেদন চোখে পড়তেই অভিনেত্রী তড়িঘড়ি করে তাকে আশস্ত করেন যে ,তিনি নিশ্চয়ই সাহায্য করবেন। এই কমেন্ট অভিনেত্রীর চোখ এড়ায়নি। যুবকের উদ্দেশে মিমি লিখলেন ,”নিশ্চয় করবো। তোমাকে যোগাযোগ করার নম্বরটা আমাকে মেসেজে করে পাঠাও।”এই বিষয়টি নিজেই টুইট করে নন্দগোপালকে আশ্বাস দিয়েছেন মিমি। এতে নন্দগোপাল ও বেশ খুশি।

Back to top button