বিনোদন

‘যশ কে নিয়ে রয়েছে অনেক বিতর্ক’ যশ-নুসরত-পুনম প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া দিলেন যশের প্রাক্তন স্ত্রী শ্বেতা সিং

নেটদুনিয়া তথা টলিউড এই মুহূর্তে উত্তাল নুসরত জাহান (Nusrat Jahan)-এর সন্তানের পিতৃপরিচয় নিয়ে। কিন্তু নুসরত এই ব্যাপারে মুখ খুলতে চান না। তাঁর পুত্রসন্তান ঈশান (Yishaan)-এর জন্মের সার্টিফিকেটে রয়েছে শুধুমাত্র তাঁর নাম। তবে নুসরতের অধিকাংশ সময় কাটে যশ দাশগুপ্ত (Yash Dasgupta)-এর সঙ্গে। মাতৃত্বকালীন সময়ের পুরোটাই জুড়ে যশ ছিলেন তাঁর সাথে। এবার নুসরত ও যশের সম্পর্কের বিষয়ে মুখ খুললেন যশের প্রথম স্ত্রী শ্বেতা সিং কালহানস (Shweta Singh Kalhans)।

তিনি প্রথম তথা প্রাক্তন। যখন নুসরতকে নারীশক্তির প্রতীক বলা হচ্ছে, শ্বেতা একাই নিজের জীবন যাপন করছেন সুদূর মুম্বইয়ে। প্রসঙ্গত, যশও মুম্বইয়ের ছেলে। মুম্বইয়ের মাটিতে কয়েকটি সিরিয়ালে অভিনয় করলেও তিনি টলিউডের বাংলা ফিল্মের মাধ্যমেই পরিচিতি লাভ করেন। ‘বোঝে না সে বোঝে না’-য় অভিনয়ের সময় শ্বেতা যশের বিরুদ্ধে বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা করেন। সেই সময় পুলিশি হেফাজতে থাকতে হয়েছিল যশকে। সেই সময় তিন বছর শ্বেতা কলকাতায় তাঁর সন্তোষপুরের বাড়িতে ছিলেন। যশের তৎকালীন গার্লফ্রেন্ড পুনম ঝা (Punam Jha)- র হস্তক্ষেপে যশ জামিন পান। এরপর তিন বছর লেগেছিল শ্বেতা ও যশের বিবাহ বিচ্ছেদ হতে। বিবাহ বিচ্ছেদের পর শ্বেতা ফিরে গিয়েছেন মুম্বই।

এই মুহূর্তে শ্বেতা মুম্বইয়ের একটি নামী সংবাদ সংস্থায় চাকরি করেন। এছাড়াও তাঁর একটি ছোট প্রযোজনা সংস্থা আছে। তবে তিনি মনে করেন, যশকে নিয়ে এখন যথেষ্ট বিতর্ক রয়েছে। এর মধ্যে তাঁর কথা না বলাই ভালো। মুম্বইয়ে যশ থাকাকালীন তাঁর সঙ্গে যশের বিয়ে হয়েছিল। তাঁদের দশ বছরের একটি পুত্রসন্তান রয়েছে যে বিবাহ বিচ্ছেদের পর দাদু, ঠাকুমা ও বাবার সঙ্গে থাকে। কিন্তু কেন এই সিদ্ধান্ত তা নিয়ে কথা বলতে চাননি শ্বেতা। টলিউডের সঙ্গে তিন বছর যুক্ত থাকলেও পুনমের সঙ্গে কোনোদিন কথা বলার প্রয়োজন মনে করেননি শ্বেতা। ডিভোর্সের পর পাকাপাকি ভাবে মুম্বই ফিরে গিয়েছেন শ্বেতা। নুসরত সম্পর্কেও কোনো কথা বলতে চাইলেন না শ্বেতা। তবে তিনি বললেন, যশের মেলামেশা করার পদ্ধতি বদলানো দরকার। ভাবা দরকার, তিনি তাঁর নিজের জীবন নিয়ে কি করতে চান! যশ ও শ্বেতার পুত্রসন্তান তাঁদের যোগাযোগের একমাত্র সেতু। কিন্তু তার বেশি যশের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক রাখতে চান না শ্বেতা। যশ যেদিন তাঁকে ছেড়ে চলে গিয়েছেন, সেদিনই তিনি অতীত হয়ে গিয়েছেন শ্বেতার কাছে। নেই লেশমাত্র ভালোবাসা।

তবে আজও নিজের মতো করে জীবন কাটাতে পারছেন না শ্বেতা। বারবার তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে যাচ্ছে মিডিয়া। কিন্তু তবু সব মিটিয়ে দিয়ে নিজের মতো করে জীবন কাটাতে চান শ্বেতা। এখনও স্বপ্ন দেখেন নিজের মতো করে বাঁচার।

Back to top button