বিনোদন

টিভির পর্দা থেকে বিদায় টুকাই দা বলার রিনি, আগমন সৃজন দা বলা তিন্নির ! প্রত্যেক পরিবারে এমন একটা বোন থাকা উচিত, বলছে দর্শকরা

বাংলা ধারাবাহিকে কিছু কিছু জিনিস না থাকলে যেন ধারাবাহিকটাই অসম্পূর্ণ থেকে যায়। যেমন পরকীয়া, একজন নায়কের দুটো বউ বা তিনটি বউও থাকতে পারে। আবার মায়ের কথায় উঠবস করা ছেলে অথবা স্বামী স্ত্রীর মাঝে কোন তৃতীয় ব্যাক্তির আগমন। নায়কের পুরনো কোনো প্রেমিকাও হতে পারে আবার পাতানো বোনও হতে পারে। এই সব কিছুরই মিশাল পাওয়া যাচ্ছে জি বাংলার নতুন সিরিয়াল নিম ফুলের মধুতে।

এইসবের কারণে কয়েক মাস পার হতেই এই ধারাবাহিকটি টিআরপি তালিকাতে দ্বিতীয় স্থান দখল করে নিয়েছে। এই গল্পটা অনেকটা বাস্তব ভিত্তিক বলে মেনে নিয়েছে দর্শকরা। বিশেষ করে বহু মা এবং মেয়েরা শ্বশুর বাড়িতে গিয়ে যে যে প্রতিকূলতা সহ্য করেছে সেই সব কিছুই এই ধারাবাহিকটিতে স্পষ্টভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে । আর তাই নিম ফুলের মধু শুরুর থেকে দর্শকদের মন কেড়ে নিয়েছে। এই গল্পের প্রত্যেকটি চরিত্র বাস্তব জীবনের সাথে হুবহু মিল রয়েছে ।এই যেমন কুঁচুটে শাশুড়ি, নতুন বউ বাড়িতে আসার পর থেকেই তার বড় জা সব সময় সমস্যা সৃষ্টি করা আবার সেই বড়জায়ের এক বোন যে নিজের বাড়ি ছেড়ে দিদির শ্বশুর বাড়িতেই পড়ে থাকা এবং সব কথায় মন্তব্য করা। এই সব নিদর্শন বাস্তব জীবনে বহুবার দেখেছে দর্শক।তবে এই তিন্নি চরিত্রটি এর আগেও দেখেছে সিরিয়াল প্রেমিকরা । তাই যত দিন যাচ্ছে সেই পুরনো চরিত্রের সাথে তিন্নি চরিত্রটি হুবহু মিলে যাচ্ছে।

জি বাংলার আর এক জনপ্রিয় সিরিয়াল এই পথ যদি না শেষ হয়। বেশ কিছুদিন আগেই টেলিভিশনের পর্দা থেকে বিদায় নিয়েছে এই ধারাবাহিকটি । কিন্তু সেখানে এক গা জ্বালানো চরিত্র ছিল রিনি। যে চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন মিশমি দাস। এই তিন্নির মতো রিনির ইচ্ছে ছিল গল্পের নায়ক টুকাই দা’কে বিয়ে করার। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা হয়নি। তাই বারবার স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কের মাঝে বাধার সৃষ্টি করেছে রিনি। এমনকি এই রিনির জন্য বারবার ঝামেলায় বেঁধেছিল টুকাই এবং তার স্ত্রী’র মধ্যে।

এক ধারাবাহিক প্রেমি এই মিল খুঁজে পেয়ে সামাজিক মাধ্যমে লিখেছেন,’ টুকাই দা বলার রিনি বিদায় হওয়ার পর এবার এলো সৃজন দা বলা তিন্নি! স্বামী স্ত্রীর মাঝে এমন একটা বোন থাকবেই যে বউ হতে হতে হয়নি! তিন্নিকে দেখে রিনির কথা মনে পড়ছে’!

Back to top button