বিনোদন

নিয়ম মেনেই মা হয়েছেন, সরকারকে জানালেন অভিনেত্রী নয়নতারা

বিয়ের ৪ মাসের মাথায় যমজ সন্তানের বাবা-মা হওয়ার সুখবর শোনান তারকা দম্পতি। গত জুনেই আনুষ্ঠানিক বিয়ে করেছেন অভিনেত্রী নয়নতারা ও পরিচালক ভিগনেশ শিবান। আর মা হওয়ার কারণে ঘোর বিপদে পড়েন এ অভিনেত্রী।

গত কয়েকমাসে অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার কোনো চিহ্নই দেখা যায়নি অভিনেত্রীর শরীরে। সন্তান দত্তকও তারা নেননি। তাই স্পষ্ট বোঝা যায়, সারোগেসির মাধ্যমেই বাবা-মা হয়েছেন ভিগনেশ ও নয়নতারা। তাতেই বিপত্তি।

২০২১-এ আনা আইন অনুসারে এদেশে টাকার বিনিময়ে গর্ভ ভাড়া নেওয়ার (সারোগেসি) বিষয়টি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। একমাত্র নির্দিষ্ট কিছু শর্তেই কোনো দম্পতি সারোগেসি সাহায্য নিতে পারেন। আর তাই নয়নতারা-ভিগনেশের সারোগেসির মাধ্যমে বাবা-মা হওয়া নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে। বিষয়টি নিয়ে তারকা দম্পতির কাছে জবাবদিহি চায় তামিলনাড়ু সরকারের স্বাস্থ্য দফতর। অবশেষে সারোগেসির মাধ্যমে বাবা-মা হওয়া নিয়ে মুখ খুললেন নয়নতারা ও ভিগনেশ।

জানা যাচ্ছে, স্বাস্থ্যদপ্তরের কাছে এফিডেভিট দিয়ে নয়নতারা ও ভিগনেশ জানিয়েছেন, এবছর জুন মাসে তাদের সামাজিক বিয়ের অনুষ্ঠান হলেও রেজিস্ট্রেশন হয়েছিল ৬ বছর আগে। এফিডেভিটের সঙ্গে রাজ্যসরকারের কাছে বিয়ের রেজিস্ট্রি সার্টিফিকেটও জমা দিয়েছেন তারকা দম্পতি। জানিয়েছেন তাদের সন্তানের সারোগেট মাদার তাদেরই ঘনিষ্ঠ আত্মীয়া। যার বয়স ২৫ থেকে ৩৫-এর মধ্যে। তাই কোনওভাবেই তারা আইনের বাইরে গিয়ে কাজ করেননি।

এদেশের সারোগেসি আইন অনুসারে, সারোগেসির মাধ্যমে বাবা-মা হতে গেলে দম্পতির বিবাহিত জীবন কমপক্ষে ৫ বছরের হতে হবে। স্ত্রীর বয়স ২৫-৫০ বছরের মধ্যে আর স্বামীর বয়স হতে হবে ২৬-৫৫ বছরের মধ্যে। দম্পতিকে নিঃসন্তান হতে হবে এবং ‘সারোগেট মাদার’- অবশ্যই যেন তাদের কোনো আত্মীয়া হন, যার বয়স ২৫ থেকে ৩৫-এর মধ্যে। তাই দেখা যাচ্ছে তারকা দম্পতি দেশের সমস্ত নিয়ম মেনেই বাবা-মা হয়েছেন।

গত ৯ অক্টোবর, সোশ্যাল মিডিয়ায় মাধ্যমে সবাইকে সুখবর দেন তারকা দম্পতি। ভিগনেশ শিবান লেখেন, ‘নয়ন ও আমি বাবা-মা হয়েছি। ঈশ্বরের আশীর্বাদে আমাদের যমজ পুত্র সন্তান হয়েছে। আমাদের প্রার্থনা ও আমাদের পূর্বপুরুষদের আশীর্বাদেই এই সুখবর এসেছে। এরা দুজনে একসঙ্গে আমাদের কাছে এসেছে। আমাদের উইর এবং উলাগামের জন্য আপনাদের আশীর্বাদ একান্তভাবেই কাম্য।’

Back to top button